- Advertisement -

আইনস্টাইনের আপেক্ষিক তত্ত্ব

আইনস্টাইনের আপেক্ষিক তত্ত্ব পদার্থবিজ্ঞানের এক আলোরন সৃষ্টিকারী তত্ত্ব। এই তত্ত্ব পদার্থবিজ্ঞান জগতে এক নতুন যুগের সৃষ্টি করে। এই তত্ত্বের মতে স্থান, কাল, ও বস্তু বা ভর পরম নয় বরং আপেক্ষিক।

আলবার্ট আইনস্টাইন এই তত্ত্বের সূচনা করেন ১৯০৫ সালে বিশেষ আপেক্ষিকতা তত্ত্ব প্রবর্তনের মাধ্যমে। বিজ্ঞানি স্যার আইজ্যাক নিউটন স্থান, সময়, এবং ভরকে নিরপেক্ষ ধরেছিলেন, অর্থাৎ এদর মান সবসময় স্থির থাকবে। কিন্তু আলবার্ট আইনস্টাইন বলেন, স্থান, কাল, সময় এবং ভর নিরপেক্ষ নয় এগুলো পরিবর্তনশীল।

আপেক্ষিকতা তত্ত্ব মূলত দুটি:

- Advertisement -
  1. সাধারণ আপেক্ষিকতা তত্ত্ব: সাধারণ আপেক্ষিকতা বা আপেক্ষিকতার সাধারণ তত্ত্ব বলতে বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন কর্তৃক ১৯১৫-১৯১৬ সালে আবিষ্কৃত মহকার্ষের জ্যামিতিক তত্ত্বকে বোঝায়।
  2. বিশেষ আপেক্ষিকতা তত্ত্ব: বিশেষ আপেক্ষিকতা বা আপেক্ষিকতার বিশেষ তত্ত্ব হল স্থান ও কাল এর আন্তঃসম্পর্ক বিষয়ক সাধারণভাবে গৃহীত ও পরীক্ষা-পর্যবেক্ষন দ্বারা দৃঢ়ভাবে সমর্থিত তত্ত্ব। বিশেষ আপেক্ষিকতাকে সাধারণ আপেক্ষিকতার একটি বিশেষ রূপ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

স্থান, কাল ও ভর:

স্থান:

স্যার আইজ্যাক নিউটন: বিজ্ঞানী নিউটন এর মতে, স্থান একটি পরম জিনিস যা তার নিজের মধ্যেই অবস্থান করে। এটি বাইরের কোনো কিছুর সাথে সম্পর্কিত নয় এবং পরিবেশ দ্বারা প্রভাবিত হয় না। যেমন- কোন বস্তুর দৈর্ঘ্য বস্তুর বা পর্যবেক্ষকের গতির উপর নির্ভরশীল নয় এবং স্থির অবস্থায় অপরিবর্তনীয়।

আলবার্ট আইনস্টাইন: বিজ্ঞানী আইনস্টাইন চিরায়ত বলবিদ্যার তিনটি মৌলিক রাশি(স্থান, কাল, ভর) গতির সাথে পরিবর্তন হয় তা প্রমাণ করেন। গতিশীল অবস্থায় কোন বস্তুর দৈর্ঘ্য, স্থির থাকা বস্তুর দৈর্ঘ্যের চেয়ে ছোট। সুতরাং গতির সাথে বস্তুর দৈর্ঘ্য সংকুচিত হয়।

কাল:

স্যার আইজ্যাক নিউটন: বিজ্ঞানী নিউটনের মতে সময় বা কাল প্রকৃতিগতভাবেই একটি পরম রাশি, যা বাইরের কোনো কিছুর উপর নির্ভর করে সমভাবে এগিয়ে চলে। সুতরাং সময় সর্বজনীন যা বস্তু বা পর্যবেক্ষকের গতির উপর নির্ভরশীল নয়।

আলবার্ট আইনস্টাইন: কোন জড় বা স্থির কাঠামোতে সংঘটিত ঘটনা উক্ত কাঠামোর সাপেক্ষে গতিশীল অন্য কোন কাঠামো থেকে লক্ষ করলে দেখা যাবে ঘটনার সময় ব্যবধান বৃদ্ধি পেয়েছে। এ বিষয়টিকে কাল-দীর্ঘায়ন বা কাল-সম্প্রসারণ(time dilation) বলে। সুতরাং গতির সাথে সময়ের প্রসারণ ঘটে।

ভর:

স্যার আইজ্যাক নিউটন: নিউটনীয় বলবিদ্যায় বস্তুর ভর একটি মৌলিক রাশি যা তার গতির উপর নির্ভরশীল নয় যেকোনো স্থানে মাপা হোক না কেন বস্তুর ভর সর্বত্র সমান থাকে।

আলবার্ট আইনস্টাইন: বস্তু গতিশীল হলে এর ভর বৃদ্ধি পায়। কোন বস্তুর স্থির অবস্থায় যে ভর থাকে, গতিশীল হলে এর ভর বৃদ্ধি পায়। কোন বস্তুর গতিশীল ভর m, স্থিরাবস্থায় ভর m০, এবং বস্তুটি v বেগে গতিশীল হলে:

Theory of relativity, আইনস্টাইনের আপেক্ষিক তত্ত্ব পদার্থবিজ্ঞানের এক আলোরন সৃষ্টিকারী তত্ত্ব। এই তত্ত্বের মতে স্থান, কাল, ও বস্তু বা ভর পরম নয় বরং আপেক্ষিক।
এখানে, c = আলোর বেগ

আরো জানুন: ন্যানো টেকনলজি

- Match Content -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here