জেনে নিন ভালো অভ্যাস আয়ত্বের কার্যকর কৌশল

আপনি দিনে কতবার ভেবেছেন যে এই অভ্যাস বা কাজটা খুবই ভালো এবং তা আয়ত্ব করতে পারলে আমার খুবই কাজে লাগবে। কিন্তু শুরু করবো করবো করেও আর শুরু করা হয় না। কিংবা কখনো হয়তো নিজেকে বলেছেন যে আজ ভালো লাগছেনা কাল থেকে শুরু করবো। কিন্তু সেই শুরু করার কালটা আর আসেনা। যদিও আপনি জানেন যে যত ভালো অভ্যাস করবেন, ততই আপনার জীবন সহজ ও সুন্দর হবে।

আপনার জীবনে এত সমস্যার কারণ হল আপনার অগোছালো জীবনযাপনের অভ্যাস। কিংবা কখনো এমনও হয়েছে, এতদিন রুটিনমাফিক চললেন পরের দিন আবার একই অবস্থা। তাহলে প্রশ্ন হল কীভাবে একটি নতুন অভ্যাস গড়ে তুলবেন বা খারাপ অভ্যাস বাদ দিবেন?

miracle morning book cover, miracle morining bangla, miracle morning summery

আজকের এই পোস্টেই আমরা আলোচনা করব নতুন অভ্যাস গড়ে তোলা বা খারাপ অভ্যাসবাদ দেওয়ার সহজ কেীশল। আর এক্ষেত্রে আমরা সাহায্য নেব “হল এলরডের লেখা বই দা ‍মিরাকল মর্নিং“ এর। এই বইয়ে লেখক আলোচনা করেছেন কীভাবে ৩০ দিনে নতুন একটি অভ্যাস স্থায়ীভাবে অর্জন করা বা বাদ দেওয়া যায়। মাত্র তিনটি পয়েন্টে জেনে নিন কীভাবে সেটা করবেন।

১. এক সময়ে একটি অভ্যাসঃ

এ কথাটির অর্থ হল ১ মাসে শুধু একটি অভ্যাসের চ্যালেন্জ গ্রহণ করা। আমাদের অনেকেরই একাধিক সমস্যা আছে। আর আমরা চাই একসাথে সব শুধরে ভালো হয়ে যেতে। আর এখানেই সবচেয়ে বড় সমস্যা। একসাথে সব সমাধান করা কখনো সম্ভব নয়। তাই আপনার একাধিক সমস্যা থাকলেও সবচেয়ে বড় ও জরুরী সমস্যাটি খুজে বের করুন এবং সেটাকে আপনার ৩০ দিনের চ্যালেন্জ হিসেবে নিন। পরের মাসে নতুন একটা। দেখবেন খুব সহজেই অভ্যাস আয়ত্ব করে ফেলতে পারবেন।

২. সন্দেহহীন মনঃ

আপনি হয়ত ভাবছেন এটা আবার কী? এটা হল কোনো অভ্যাস আয়ত্ব করার দুই একদিন পরেই যখন আপনার মন বলে এসব করে কী হবে? এখনোতো কোনো ফলাফল পেলামনা। এসব করে কী লাভ? অযথা সময় নষ্ট। আর ঠিক তখনই আপনার কাজ থেমে যায়। তাই কোনো অভ্যাস আয়ত্ব করার আগে জেনে নিন গুগল বা অন্য কোথাও থেকে যে অভ্যাসটা আয়ত্ব করার পর আপনার কী কী লাভ হবে এবং অভ্যাসটা আয়ত্ব না করতে পারলে কী কী ক্ষতি হচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও কী কী ক্ষতি হবে। তার একটা তালিকা করুন। ধরুন সিগারেট খাওয়া বাদ দিবেন। তাহলে সিগারেটের ক্ষতিগুলো লেখুন এবং ইন্টারনেটে ক্যানসারের ভয়ানক সব ছবি দেখে নিতে পারেন। আর কোনো কাজের ফলাফল পেতে সর্বনিম্ন ২১ দিন লাগে এটা মনে রাখুন।

৩. ৩০ দিনের চ্যালেন্জঃ

যে কোনো অভ্যাস আয়ত্ব করতে বা বাদ দিতে হলে ৩০ দিন লাগে। এই ৩০ দিনে আপনার অবস্থা তিনটি অবস্থা যাবে। প্রথম দশদিন যাবে অসহ্যকর অবস্থার মধ্য দিয়ে। আপনার মনের সাথে আপনার লড়াই হবে। আপনার মনে হবে ধুর এসব কি ফালতু কাজ শুরু করলাম। এর চেয়ে আগেই ভালো ছিলাম। বাদ দেই। এরকম নানান কথা। এসময় আপনার নিজেকে ঠিক রাখতে হবে।

২ নং এ যে তালিকা তৈরির কথা বলেছিলাম তা দেখে নিন। সেটা আপনাকে মানসিক শক্তি দেবে। লাভ ক্ষতিগুলো বার বার দেখুন। এরপর আসে দ্বিতীয় দশদিন। এসময় আপনার প্রথম দশ দিনের মত কষ্ট না হলেও এখনো নতুন ভালো অভ্যাসটাকে পুরোপুরি ভালোও লাগেনি। ধরা যাক বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলবেন। তাহলে ১ম দশদিন পড়তেই ইচ্ছে হবে না। আর পরের দশদিন খুব কষ্ট না হলেও বা ভালো না লাগলে পড়তে বসবেন।

এরপর আসে তৃতীয় দশ দিন, এসময় আপনার জন্য পড়তে বসা সহজ বা সিগারেট বাদ দেওয়াও সহজ। আপনার মনে হবে অভ্যাস আয়ত্ব হয়ে গেছে বই পড়তে ভালো লাগছে এবং সিগারেট ছাড়াই দিন কাটাচ্ছেন। এখানেও ফাদ আছে। এখানেই থেমে যাওয়া যাবে না। আপনাকে ৩০ দিনের টার্গেট পুরণ করতেই হবে। তাহলে আপনি আয়ত্ব করবেন একটি ভালো অভ্যাস। দরকার হলে ক্যালেন্ডার হাতে নিয়ে প্রতিদিন একটি করে দিনে দাগ দিয়ে নিজেকে সজাগ রাখুন।

ধন্যবাদ

Leave a Comment