ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিভিন্ন কাজ এবং তার সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে যা কাজ আছে সে কাজ গুলো কি কি তা নিয়ে পূর্বের একটি পোষ্ট আছে, আর সেখানে ফ্রিল্যানসিং করার জন্য সব কাজ ও তার সংক্ষিপ্ত বর্ণনা দেওয়া হয়েছে, যদি না পড়ে থাকেন এখনি পড়ে নিন।

ফ্রিল্যান্সিং এর বিভিন্ন কাজ ও তার সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

ডিজিটাল মার্কেটিং এর যেসব কাজ পাওয়া যায় ফ্রিল্যান্সিং এ! তার বর্ণনাঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সকল কাজ একবারে জানা সম্ভব নয়, তাই এখান থেকেও এক এক করে কাজ শিখতে হবে, এবং যে কাজ টি ভালো লাগবে সে কাজটি নিয়ে ফ্রিল্যানসিং শুরু করতে হবে। আর ধিরে ধিরে সব কাজ শিখতে হবে, এখানে সব কাজ একটার সাথে আরেকটি বিভিন্ন ভাবে জরিত। যেমনঃ কেউ যদি কাজ দেয়, তার ওয়েবসাইট এ ট্রাফিক আনতে হবে, এই কাজ অনেক ভাবে করা যায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম দিয়ে, SEO করে, Email মার্কেটিং করে আর ভিডিও মার্কেটিং করেও আনা সম্ভব, তাই সব ধরনের কাজ শিখতে হবে। এখন দেখা যাক সব ধরনের কাজের সংক্ষিপ্ত বর্ণনাঃ

  • Social Media Marketing: এটি হল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মার্কেটিং, অনেক ধরনের কাজ আছে, যেমনঃ কোন পণ্য বা সেবা বিভিন্ন গ্রুপ ও পেজ এ পোষ্ট করা, কারো জন্য পেজ খোলা, বা কারো সব ধরনের সোস্যাল মিডিয়া একাউন্ট খুলে দেওয়া। এমন প্রায় অনেক কাজ পাওয়া যায়, ফ্রিল্যান্সিং এ। কিন্তু একটা ব্যাপার হল, এই ধরনের কাজ করে এখন এতো বেশি মানুষ হয়ে গেছে যে কাজ পাওয়া টা খুব কঠিন হয়, তবে এখন ও কাজ পাওয়া যায়। প্রথম কাজ পেতেই অনেক সময় অপেক্ষা ও নানা রকম কাজ করতে হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এর যেসব ওয়েবসাইট পাওয়া যায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলঃ Facebook, Twitter, Linkedin, Instagram, Pintarest, Tumblr ইত্যাদি।
  • SEO: SEO এর পুরো হল Search Engine Optimization। ধরুন আপনি Google এ “ফ্রিল্যাসিং কি?” লিখে সার্চ দিলেন, তাহলে দেখবেন ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে বিভিন্ন ওয়েবসাইট এ দেওয়া বিভিন্ন তথ্য দেখতে পাচ্ছেন এটা কিসের জন্য হয়, এটা মূলত হয় Keyword দিয়ে, এখানে ফ্রিল্যান্সিং হল মূলত একটা Keyword। আর এসব Keyword সহ নানা রকম আরো অনেক কিছু আছে যা দিয়ে SEO করা হয়। সোস্যাল মিডিয়া তে একাউন্ট খুলে ওয়েবসাইট এর বিভিন্ন পোষ্ট শেয়ার করাও এক ধরণের SEO। SEO নিয়ে অনেক কোর্স আছে, তাই SEO এতো সহজ ব্যাপার নয়, তবে শিখতে শুরু করলে সহজ হয়ে যাবে। SEO দুই প্রকার, On page SEO আর Off page SEO। SEO নিয়ে পরবর্তীতে আরো পোষ্ট দেওয়া হবে।
  • Marketing Strategy: একটা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কোন পণ্য বা সার্ভিস কাষ্টমার পর্যন্ত পৌছানোর জ্ন্য যে পরিকল্পনা তৈরি করা হয়, তাই হল Marketing Strategy। সেই পণ্য বা সার্ভিস কিভাবে কাষ্টমার কে দিবে এবং তার সকল প্রকার নিয়ম কানুন এই Marketing Strategy এর মধ্যে পরে, এই কাজটিও ডিজিটাল মার্কেটিং এর অংশ কিন্তু এই কাজ সবার দ্বারা করা সম্ভব নয়। এই ধরনের কাজ এমন হয় যে, আপনি একটা Strategy দিবেন কোম্পানিকে, এবং তারা আপনার দেওয়া সেসব নিয়ম অনুযায়ী কোম্পানির পণ্য বা সেবা কাষ্টমার কে দিয়ে তার ফলাফল দেখবে। এই বিষয়ে কাজ করতে গিয়ে ফ্রিল্যান্সাররা DIY এই শব্দের ব্যবহার করে থাকে। যার পুরোটা হলঃ Do It Yourself. এ নিয়ে বেশিকিছু দেওয়া হবেনা, বেশি তথ্য জানা নেই আমার।
  • Public Relations: এই কাজের ব্যাপারে সহজ ভাবে বলতে গেলে, কোন প্রতিষ্ঠান বা পরিচিত ব্যাক্তির জন্য একটা ভালো মানের পরিচিতি তৈরী করা, ইন্টারনেটে তাদের বা তার ব্যপারে একটা ভালো কিছু তৈরী করা, মার্কেটিং এর মাধ্যমে, যেমনঃ Daraz একটি ভালো মানের Ecommerce সাইট, বা রাশেদ একজন ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইনার, এভাবে ইন্টারনেটে তার বা সেই প্রতিষ্ঠানের একটা Positive জায়গা গড়ে তোলা। যাতে সেই প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তি কাষ্টমার পায় ভালো।
  • Content Marketing: নিজে কোন কনটেন্ট বানিয়ে অন্যের জন্য মার্কেটিং করাই হল কন্টেন্ট মার্কেটিং, যেমনঃ আমি আমার ওয়েবসাইট এ আরেকটা কোম্পানিরর পণ্য বা সেবার কথা নিয়ে লিখলাম আর পোষ্ট দিলাম, এইটা হল কনটেন্ট মার্কেটিং।
  • Video Marketing: কনটেন্ট মার্কেটিং এর মতনি, কিন্তু এখানে সেটা হবে ভিডিও এর মধ্য দিয়ে, নিজের ভালো ইউটিউব চ্যানেল আছে, তাতে অন্যের কোন কোম্পানির বা পণ্যের ব্যাপারে বলা, বা অন্য কোন পণ্য বা কোম্পানির ব্যাপারে ভিডিও বানিয়ে সেটা বিভিন্ন জায়গায় ছরিয়ে দেওয়া।
  • Email Marketing: ইমেইল মার্কেটিং হল ইমেইল এর মাধ্যমে নানা রকম ব্যাপার বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল এড্রেস এ পাঠানো, ভাবছেন এতো প্রাতিষ্ঠানিক ই-মেইল এড্রেস পাবেন কোথায়। সহজ উত্তর হল বিভিন্ন বড় বড় প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট এড্রেস আছে, সেখানে তাদের ই-মেইল এড্রেস দেওয়া থাকে। ই-মেইল সংগ্রহ করার ও কাজ পাওয়া যায় ফ্রিলান্সার এ, মেইল কালেক্টিংও একটি ফ্রিল্যান্সার এর কাজ। ই-মেইল সংগ্রহ করার কিছু সহজ উপায় আছে যা দ্বারা ইমেইল সংগ্রহ করতে পারবেন, এর পর সেসব ই-মেইল কে পরীক্ষা করে দেখা এবং পরীক্ষা শেষে যে ইমেইল বের হয় সেটা কে বলে Valid Email। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ধরন অনুযায়ী ই-মেইল কালেক্ট করা যায়। আর সেসব Valid Email এর List পড়ে বিক্রি করতে পারবেন ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে। ইমেইল মার্কেটিং নিয়ে সব তথ্য নিয়ে পরে আরো বিস্তারিত আলোচনা হবে।
  • Crowdfunding: এটি একটি ইন্টারনেট ভিত্তিক কাজ যার মাধ্যমে কোম্পানি বা কোন ব্যাক্তি কিছু কাজ করার আগে দেখে যে সে কাজটি মানুষকে কেমন লাগবে, বা মানুষের দ্বারাই সে কাজটির পর্যবেক্ষণ করা। আরেকভাবে দেখা, যে কোন প্রতিষ্ঠান কোন পণ্য ছারার আগে তার বিষয়ে মার্কেটিং করে, কত জন মানুষ সেই পণ্যের জন্য পূর্বেই-অর্ডার করে সে বিষয় এর উপর পণ্য টি বাজারজাত করে থাকে। এর মধ্য দিয়ে কোম্পানি কিছু টাকা ইনভেস্ট ও করে, যেমনঃ Iphone 11 বের হবে, Pre-Order করলে 10% ছার। আর এই Crowdfunding করে দিতে হবে ইন্টারনেটে এটাই কাজ।
  • SEM: SEM এর পুরো অর্থ দ্বারায় Search Engine Marketing, এই কাজের মধ্যে পরে Google Ads, Google Adswords, Taboola, Outbrand এ ক্যাম্পেইন তৈরী করে দেওয়া, যেটা মূলত সরাসরি Search Engine এর সাথে জরিত। অনেকটা Search Engine কে বলা, আমার পণ্যটি মানুষ কে দেখাও। যা টাকার মাধ্যমে করা হয়।
  • Surveys, Web Analytics, Social Media Advertising, Local SEO, Influencer Marketing, E-Commerce Marketing, Mobile Marketing & Advertising, Podcast Marketing, Book & eBook Marketing: এইগুলো সব গুলোই মার্কেটিং এর বিভিন্ন ধরন, ‍Surveys তৈরী করে কোন পণ্য এর ব্যাপারে ব্যাক্তি পর্যায় এর মধ্য থেকে তথ্য সংগ্রহ ও তাদের তথ্য দেওয়া, Web Analytics এর দ্বারা বিভিন্ন মানুষ কি কি বিষয় নিয়ে সার্চ দেয় বা খোজে সে অনুযায়ী তাকে পণ্য দেখানো হয়, ‍Social Media গুলোতে Boost বাহ এডভার্টাইজ দেওয়া যায় কোন পর্ণের বিষয়ে, সেটার সাথে সম্পর্কিত এভাবে প্রত্যেক টি একেক ধরনের মার্কেটিং, যদি কারো জানার ইচ্ছা থাকে নির্দিষ্ট কোন মার্কেটিং এর ব্যাপারে, কমেন্ট করতে পারেন, তাহলে বিস্তারিত বলে দিতে পারবো।
  • Domain Research: ডোমেইন রিসার্স একটা খুব ভালো কাজ, কিন্তু এই কাজ এর জন্য টাকা ইনভেষ্ট করতে হয়, অনেক মজার কাজ, ডোমেইন সম্পর্কে যারা বোঝেন না তাদের বিষয়ে সংক্ষিপ্ত ভাবে বলি, যেমনঃ Careerhelpbd.com এটা একটা ডোমেইন, এই ডোমেইন এই ওয়েবসাইট এ ব্যবহার করতেছি আমরা, এই ডোমেইনের দাম ৯৫০ টাকা। এই ডোমেইন আর কেউ চাইলেও নিতে পারবেনা। ঠিক এমন ভাবে বিভিন্ন নাম দিয়ে ডোমেইন কিনে রাখতে হয়, তবে এমন ডোমেইন কিনতে হয়, যা ভবিষ্যতে কাজে লাগবে কোন প্রতিষ্ঠানের, অথবা ভালো নামের ডোমেইন যেটার চাহিদা আসতে পারে। পরে সেই ডোমেইন বিক্রি করা যায় ১০ গুন দামে, যেমনঃ Careerhelp.com ডোমেইন আমরা নিতে পারতাম, কিন্তু তার জন্য খরচ হতো ৮০ হাজার টাকা বা তার চাইতে কিছু কম বেশি, কারণ এই ডোমেইন কিনে রাখছে যে ওয়েবসাইট, সে এই দামে বিক্রি করবে। এই দামে কি বিক্রি হবেনা, হবে অবশ্যই, কিন্তু এটা কোন প্রতিষ্ঠান কিনবে যাদের এই ডোমেইন অনেক জরুরি ভাবে লাগবে। (এই কাজ আপনি পেতে পারেন এভাবে যে কারো জন্য ডোমেইন খুজে দেওয়া, যে ডোমেইন কেনার জন্য Available এবং ভবিষ্যতে এটা থেকে সেই ব্যাক্তি একটা ভালো অর্থ পাবে।)
  • Music Promotion, Web Traffic: কোন গান এর প্রচার করা, তা যেনো সবার মাঝে ‍ছরিয়ে দেওয়া যায়, আর ওয়েবসাইটে ট্রাফিক নিয়ে আসা। এই দুইটার কাজ এতোটুকুই। শুধু জানতে হবে সেটা কিভাবে করতে হবে।

2 thoughts on “ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিভিন্ন কাজ এবং তার সংক্ষিপ্ত বর্ণনা”

    • জ্বি, বুঝছি, আপনি যেটা দিছেন, মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো ধারণা আছে আপনার, ডিজিটাল মার্কেটিং এও ভালো করবেন, কাজ চালিয়ে যান।

      Reply

Leave a Comment